নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫ এর মাঝে পার্থক্যঃ নেক্সাস ফোন

নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫

নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫ সম্পর্কে বিস্তারিত


নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫ঃ আপনাদের বহুল প্রতীক্ষিত অ্যান্ড্রয়েড ৪.৪ অবশেষে মুক্তি পেয়েছে আরেক প্রতীক্ষিত ডিভাইস গুগল নেক্সাস ৫-এর সঙ্গে। মজার ব্যাপার হচ্ছে নেক্সাস ৪ বাজারে আনার মধ্য দিয়ে স্মার্টফোনের বাজারেও ব্যাপক জনপ্রিয়তা অর্জন করে নিতে সক্ষম হয় গুগলের নেক্সাস প্রোগ্রাম।

প্রায় ৩৪৯ ডলারে গুগুল প্লে স্টোরে মুক্তি দিয়েছে এলজির তৈরী নেক্সার ৫। এখন যারা নেক্সাস ৪ ব্যবহার করছেন তাদের কি এই নতুন ডিভাইস নেয়া উচিত হবে?

নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫ এর মাঝে কোন টা আপনার জন্য ভাল হবে? তাদের জন্যই আমার আজকের লেখা।

তো চলুন জেনে নেয়া যাক নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫ এর মাঝে কোন টি আপনার জন্য ভাল হবে।

 নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫ ডিসপ্লেঃ

এলজির তৈরি নেক্সাস ৪-এর ডিসপ্লের আকার ৪.৭ ইঞ্চি, যার রেজুলেশন 1280×738 পিক্সেল ও পিপিআই (পিক্সেল পার ইঞ্চি) ৩২০। অন্যদিকে নেক্সাস ৫-এর ডিসপ্লের আকার ৪.৯৫ ইঞ্চি, স্ক্রিন রেজুলেশন 1920×1080 ফুল এইচডি এবঙ পিক্সেল পার ইঞ্চি ৪৪৫।

এছাড়াও নেক্সাস ৪-এর ডিসপ্লেতে ব্যবহৃত হয়েছে করনিং গরিলা গ্লাস ২ যেখানে নেক্সাস ৫-এ রয়েছে করনিং গরিলা গ্লাস ৩।

নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫ প্রসেসরঃ

এলজি নেক্সাস ৪-এ প্রসেসর হিসেবে রয়েছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন এস৪ প্রো। তবে নতুন নেক্সাস ৫-এ দেয়া হয়েছে কোয়ালকমের আরও শক্তিশালী প্রসেসর স্ন্যাপড্রাগন ৮০০। দু’টো ফোনেই ব্যবহৃত হচ্ছে ২ গিগাবাইট র্যাম।

নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫ ক্যামেরাঃ

ফ্রন্ট ও ব্যাক ক্যামেরা নেক্সাস ৪ ও নেক্সাস ৫-এ একই রকম। সামনে ১.৩ মেগাপিক্সেল ও পেছনে ৮ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা দেয়া হয়েছে গুগলের দু’টি ফোনেই। তবে নেক্সাস ৫-এর ক্যামেরায় নতুন ব্যবহৃত হচ্ছে OIS বা অপটিক্যাল ইমেজ স্ট্যাবিলাইজেশন। এছাড়াও নতুন সফটওয়্যার ব্যবহৃত হওয়ায় নেক্সাস ৫-এর ক্যামেরায় তোলা ছবির কোয়ালিটি নেক্সাস ৪-এর চেয়ে খানিকটা উন্নত বলেই মতামত দিয়েছে প্রযুক্তি বিষয়ক প্রকাশনাগুলো।

নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫ অপারেটিং সিস্টেমঃ

এটি বলার অপেক্ষা রাখে না যে, নেক্সাস ৫-এর সঙ্গে রয়েছে গুগলের সর্বশেষ অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম সংস্করণ, অ্যান্ড্রয়েড ৪.৪ কিটক্যাট। অ্যান্ড্রয়েড ৪.৪ কিটক্যাটে নতুন বেশ কিছু বৈশিষ্ট্য যোগ করা হলেও এই সংস্করণটি শিগগিরই নেক্সাস ৪-এও চলে আসবে। তবে কিছু কিছু সুবিধা কেবল নেক্সাস ৫-এই সীমাবদ্ধ, যার কারণে কিটক্যাটের জন্য নেক্সাস ৫ বেশি উপযোগী বলা যায়।

নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫ ব্যাটারিঃ

নেক্সাস ৪-এর ২১০০ এমএএইচ ব্যাটারি থেকে বেড়ে নেক্সাস ৫-এ গুগল ব্যবহার করেছে ২৩০০ এমএএইচ ব্যাটারি। খুব বড় আপডেট না হলেও বাড়তি ব্যাটারির ক্ষমতা কাজে আসবে তা বলার প্রয়োজন রাখে না।

নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫ নেটওয়ার্কঃ

নেক্সাস ৪-এর জনপ্রিয়তায় ভাটা পড়ার যে হাতেগোণা কয়েকটি কারণ ছিল, তার মধ্যে অন্যতম একটি ছিল এতে ৪জি এলটিই সুবিধা না থাকা। যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসকারী ব্যবহারকারীদের জন্য ৪জি এলটিই না থাকা একটি বড় নেতিবাচক দিক। নেক্সাস ৫-এর মধ্য দিয়ে গুগল সেই ভুল শুধরে নিয়েছে। ফলে নেক্সাস ৪-এর ২জি ও ৩জি সুবিধা থেকে বেড়ে নেক্সাস ৫-এ রয়েছে ২জি, ৩জি ও ৪জি এলটিই সুবিধা।

এটি বাংলাদেশে বসবাসকারীদের জন্য খুব একটা কাজে কিছু না। অদূর ভবিষ্যতে বাংলাদেশে ৪জি এলটিই চালু হলেও ততোদিনে কেউ নেক্সাস ৫ ব্যবহার করতে থাকবেন না এমনটা ধারণা করাই হয়তো নিরাপদ!

নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫ মূল্যঃ

বাড়তি স্ক্রিন সাইজ, বাড়তি রেজুলেশন, আরও শক্তিশালী প্রসেসর অথচ হালকা ওজনের নেক্সাস ৫-এর জন্য আপনাকে কিন্তু এক টাকাও (বা ডলারও) বেশি গুণতে হচ্ছে না! গুগল নেক্সাস ৫ ঠিক নেক্সাস ৪-এর দামেই বিক্রি করছে। নেক্সাস ৪ গুগল প্লে স্টোরে ৮ গিগাবাইট মডেল ২৯৯ ডলারে এবং ১৫ গিগাবাইট মডেল ৩৪৯ ডলারে বিক্রি করে।

নেক্সাস ৫-ও ঠিক একই দামে অর্থাৎ ১৬ গিগাবাইট মাত্র ৩৪৯ ডলারে বিক্রি করছে। বেশি স্টোরেজের প্রয়োজন বোধ করলে মাত্র ৫০ ডলার বেশি দিয়ে ৩৯৯ ডলারে ৩২ গিগাবাইট মডেলটি কিনতে পারবেন ক্রেতারা।

তবে উল্লেখ্য যে, গুগল প্লে স্টোর ছাড়া বাইরের ইলেকট্রনিক্স স্টোরে নেক্সাস ফোনের দাম তুলনামূলক বেশি থাকে। আর বাংলাদেশে যেহেতু প্লে স্টোর থেকে সরাসরি ডিভাইস বিক্রি করা হয় না, সেহেতু তৃতীয় কোনো ক্রেতার কাছ থেকে কিনতে গেলে এই দামে পাওয়া নাও যেতে পারে।

তারপরও নেক্সাস ৫-এর দাম তুলনা করলে আনলকড অন্যান্য স্মার্টফোন (যেমন এলজি জি২, মটো এক্স)-এর দামের তুলনায় নেক্সাস ৫ বেশ সস্তা। তাই নেক্সাস ৫-এর চাহিদা নেক্সাস ৪-এর চেয়ে বেশি হবে, বিশেষ করে ৪জি এলটিই সুবিধা থাকার কারণে, এ ভবিষ্যত বাণী এমনিতেই করা যায়!

এক নজরে নেক্সাস ৪ এবং নেক্সাস ৫ঃ

এবার চলুন দেখে নিই নেক্সাস ৪ ও নেক্সাস ৫-এর স্পেসিফিকেশনগুলো এক নজরে।

 পার্থক্যের বিষয়নেক্সাস ৪নেক্সাস ৫
প্রস্তুতকারকLGLG
স্টোরেজ8 গিগাবাইট, 16 গিগাবাইট16 গিগাবাইট, 32 গিগাবাইট
মূল্য$299, $349$349, $399
ডিসপ্লে4.7-ইঞ্চি, 1280×738, 320 পিপিআই4.95-ইঞ্চি, 1920×1080, 445 পিপিই
স্ক্রিনকরনিং গরিলা গ্লাস ২করনিং গরিলা গ্লাস ৩
প্রসেসরকোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন এস৪ প্রোকোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮০০
র‌্যাম২ গিগাবাইট২ গিগাবাইট র‌্যাম
ব্যাক ক্যামেরা৮ মেগাপিক্সেল৮ মেগাপিক্সেল ওআইএস
ফ্রন্ট ক্যামেরা১.৩ মেগাপিক্সেল১.৩ মেগাপিক্সেল
ব্যাটারি২,১০০ এমএএইচ২,৩০০ এমএএইচ
নেটওয়ার্ক২জি/৩জি২জি/৩জি/৪জি এলটিই
ব্লুটুথ৪.০৪.০
এনএফসিঅ্যান্ড্রয়েড বিমঅ্যান্ড্রয়েড বিম
কানেক্টরমাইক্রো-ইউএসবিমাইক্রো-ইউএসবি
দৈর্ঘ্য৫.২৭-ইঞ্চি (133.9 mm)৫.৪৩ ইঞ্চি (137.84 mm)
প্রস্থ২.৭ ইঞ্চি (68.7 mm)২.৭২ ইঞ্চি (69.17 mm)
পুরুত্ব০.৩৫ ইঞ্চি (9.1 mm)০.৩৪ ইঞ্চি (8.59 mm)
ওজন১৩৯ গ্রাম১৩০ গ্রাম
রঙকালো, সাদাকালো, সাদা
অপারেটিং সিস্টেমঅ্যান্ড্রয়েড ৪.২ জেলি বিনঅ্যান্ড্রয়েড ৪.৪ কিটক্যাট

 

তো এবার আপনি ঠিক করুন আপনার জন্য কোনটি ভালো হবে। যাই করুন না কেন,আপ্নার অভিজ্ঞতা আমাদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না।

সবাইকে অনেক ধন্যবাদ।

(Visited 1 times, 1 visits today)
Don`t copy text!
Read previous post:
বাংলা ব্লগ ফোরাম লিষ্ট
বাংলা ব্লগ ফোরাম লিষ্ট জেনে নিন- সকল বাংলা ব্লগ ফোরাম

বাংলা ব্লগ ফোরাম লিষ্ট এক পাতায় বাংলা ব্লগ ফোরাম লিষ্টঃ বাংলা ব্লগ ফোরাম লিষ্ট জানার জন্য অনেকেই অনেক ওয়েবসাইট খোজ...

Close